image_270225.nayeem
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার স্বাধীনতা পদকজয়ী বিশিষ্ট গীতিকবি নয়ীম গহরের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তাকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে সেখানে ভর্তি করা হয়েছে নয়ীম গহরকে।
‘জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো’, ‘নোঙ্গর তোলো তোলো সময় যে হলো হলো’, ‘পূবের ঐ আকাশে সূর্য উঠেছে’— এমন সব কালজয়ী দেশাত্মবোধক গানের গীতিকবি নয়ীম গহর। গানের বাণীতে মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রেরণা যুগিয়েছিলেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের সময় এতকিছু করলেও পরে মুক্তিযোদ্ধা সার্টিফিকেট গ্রহণ করেননি। তবে ২০১২ সালে তাকে স্বাধীনতা পদক দেওয়া হয়।
বার্ধক্যজনিত নানা রোগে আক্রান্ত মুক্তিযুদ্ধের সময় কালজয়ী গানের রচয়িতা নয়ীমের শারীরিক অবস্থা মোটেও ভাল নয়। এদিকে চিকিৎসার ব্যয় নির্বাহ করতে গিয়ে প্রায় সর্বস্বান্ত তার পরিবার।
এই দুঃসময়ে প্রধানমন্ত্রীর এমন উদ্যোগে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন কালজয়ী এই গীতিকারের পরিবারের সদস্যরা।
নয়ীম গহরের মেয়ে বিশিষ্ট অভিনেত্রী ইলোরা বলেন, আমার বাবা যে অসুস্থ এ খবরটা কেউ তাঁকে দেয়নি। এবার গণমাধ্যমে জানতে পেরে শেখ হাসিনা দ্রুত আমার বাবার চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন। আমরা কৃতজ্ঞ। এর আগে বিভিন্ন সময় আমরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি।

নয়ীম গহর গীতিকারের পাশাপাশি একজন ঔপন্যাসিক, গায়ক, অভিনেতা ও নাটক রচয়িতা। তিনি বিবিসি বাংলার ভাষ্যকার ও সংবাদ পাঠক ছিলেন। দেশের বাইরে চাকরি নিয়ে গেলেও ফিরে আসেন মাটির টানে।

নৃপেন পোদ্দারজাতীয়
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার স্বাধীনতা পদকজয়ী বিশিষ্ট গীতিকবি নয়ীম গহরের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তাকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে সেখানে ভর্তি করা হয়েছে নয়ীম গহরকে। ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো’, ‘নোঙ্গর তোলো তোলো সময় যে হলো হলো’, ‘পূবের ঐ আকাশে...