1441536376
নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের ঘটনায় আসামিপক্ষে মামলা লড়তে চান ঢাকা বারের পাঁচ আইনজীবী। রবিবার নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এএইচএম শফিকুল ইসলামের আদালতে তারা আবেদন জানান।

সাত খুনের মামলায় আজ আদালতে নিয়মিত হাজিরার দিন ধার্য ছিল। মামলার ৩৫ আসামির মধ্যে ২২ জনকে আদালতে হাজির করা হয়। বাকি ১৩ জন পলাতক আছেন।

এর আগে আদালত পলাতক আসামিদের মালামাল ক্রোক করার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। আজ এই কাজের অগ্রগতি করা সম্পর্কে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্টরা আটজনের মালামাল ক্রোক করার কথা আদলতকে জানান। এসময় আদালত বাকি পাঁচজনের মালামাল দ্রুত ক্রোক করার জন্য নির্দেশ দেয়।

আদালতে আজকের শুনানিতে ঢাকা বারের পাঁচজন আইনজীবী উপস্থিত হয়ে আসামি পক্ষে শুনানি করার জন্য আবেদন জানান। তাদের দাবি, নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতি বিবাদী পক্ষে শুনানি করতে আগ্রহী না হওয়ায় তারা ঢাকা থেকে এসেছেন।

তবে বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন বলেছেন, আসামি পক্ষের আইনজীবী নিয়োগের ক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির কোনো সিদ্ধান্ত নেই। তারা যে কোনো আইনজীবী নিয়োগ করতে পারেন।

আগামী ৭ অক্টোবর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

গত ২৭ এপ্রিল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোডের ফতুল্লার শিবু মার্কেট এলাকা থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর নজরুল ইসলামসহ সাতজনকে অপহরণ করা হয়। এর তিন দিন পর শীতলক্ষ্যা নদীতে তাদের লাশ পাওয়া যায়। এই ঘটনায় নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি ও আইনজীবী চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে পৃথক দুইটি মামলা করেন।

গত ৯ এপ্রিল তদন্ত শেষে নূর হোসেন, র‍্যাব এর সাবেক তিন কর্মকর্তা লে. কর্নেল (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, মেজর (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) আরিফ হোসেন ও লে. কমান্ডার (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) এম এম রানাসহ ৩৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

সুরুজ বাঙালীআইন-আদালত
নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের ঘটনায় আসামিপক্ষে মামলা লড়তে চান ঢাকা বারের পাঁচ আইনজীবী। রবিবার নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এএইচএম শফিকুল ইসলামের আদালতে তারা আবেদন জানান। সাত খুনের মামলায় আজ আদালতে নিয়মিত হাজিরার দিন ধার্য ছিল। মামলার ৩৫ আসামির মধ্যে ২২ জনকে আদালতে হাজির করা হয়। বাকি ১৩ জন...