eid-train_163771
ঈদে ঘরে ফেরার শুরুতেই মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে শুরু হয়েছে তীব্র যানজট। যাত্রীরা পড়ছেন মহাদুর্ভোগে। যানজট আগামী দু-তিন দিন আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ ঈদের আগে আগামী তিন দিন মহাসড়কে যানবাহনের চাপ আরও বাড়বে বলে মনে করছেন পরিবহন মালিকরা।

মহাসড়কে যানজটের কারণে বাস সঠিক সময়ে গন্তব্যে পেঁৗছতে পারছে না। ফলে সময়মতো বাস ছাড়া সম্ভব হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। ট্রেনেও সেই অবস্থা। ট্রেনের সময়সূচি গতকালই কিছুটা এলোমেলো হয়ে গেছে। তবে লঞ্চ যথাসময়ে ছাড়ছে বলে জানা গেছে।

বিশেষ করে ঢাকা-টাঙ্গাইল এবং সোনারগাঁ এশিয়ান হাইওয়েতে যানজট ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। গতকাল ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে প্রায় ২২ কিলোমিটারজুড়ে যানজট হয়। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলছেন, এ সড়কে এমনিতেই প্রায়ই যানজট লেগে থাকে। কারণ এ মহাসড়ক অপ্রশস্ত এবং রাস্তার অবস্থা ভালো নয়। তা ছাড়া ঈদের আগে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। এজন্য পরিস্থিতি ভয়াবহ। ঈদের আগে পরিস্থিতি আরও নাজুক হতে পারে বলে
আশঙ্কা করা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ এশিয়ান হাইওয়ের কাঁঠালিয়া থেকে রূপগঞ্জের কাঞ্চন পর্যন্ত গতকাল প্রায় ১২ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে ঢাকা থেকে সিলেটগামী গাড়িগুলো যানজটের কবলে পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থাকে। তবে ঢাকা-চট্টগ্রাম এবং ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কে যানজট তুলনামূলক কম ছিল। পাটুরিয়া এবং দৌলদিয়া ফেরিঘাটে যানজট থাকলেও মাওয়া ঘাটে যানজট ছিল না।

সোমবার গাবতলী টার্মিনাল পরিদর্শনকালে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানিয়েছেন, ভারি বর্ষণের কারণে মহাসড়ক বার বার ঠিক করা হলেও আবার নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ফলে দুর্ভোগ কিছুটা হতে পারে। অন্যদিকে নির্মাণ বিশেষজ্ঞ ও বুয়েটের অধ্যাপক মুনাজ আহমেদ নূর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রীর ব্যবহার এবং যথাযথভাবে নির্মাণ না করার কারণেই সামান্য বৃষ্টিতে মহাসড়ক চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ছে। উন্নত নির্মাণসামগ্রী ব্যবহার করা হলে কমপক্ষে পাঁচ বছর সড়ক অক্ষত থাকবে।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক: ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজট শুরু হয় মূলত টাঙ্গাইলের মির্জাপুর এলাকায়। এর বাইরে কালিয়াকৈর, গাজীপুর, সাভারেও দীর্ঘ যানজট দেখা যায় গতকাল। মির্জাপুর প্রতিনিধি জানান, রোববার রাত থেকে শুরু হওয়া গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি এবং মহাসড়কের তিনটি স্থানে গরুর ট্রাক বিকল হওয়ায় রাত থেকে যানজটের সৃষ্টি হয়। মহাসড়কে গতকাল সারাদিনই এর প্রভাব ছিল।

কালিয়াকৈর প্রতিনিধি জানান, গাজীপুরের বাইপাস সড়ক মোড়, কোনাবাড়ী, কালিয়াকৈরের মৌচাক, সফিপুর, পল্লী বিদ্যুৎ, চন্দ্রা ত্রিমোড়, কালিয়াকৈর বাইপাস, গোড়াই এলাকার আশপাশের দু’পাশের সড়কে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। আবার শাখা সড়ক থেকে বিভিন্ন যানবাহন মহাসড়কে ঢোকার কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে ধীরে ধীরে এ যানজট দীর্ঘ হতে থাকে।

সাভার প্রতিনিধি জানান, ঈদ সামনে রেখে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক ও নবীনগর কালিয়াকৈর সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে ঘরমুখো মানুষ দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। কোথাও খানাখন্দেভরা রাস্তার কারণে, আবার কোথাও কোথাও ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন করে এলোপাতাড়ি গাড়ি চলাচলের জন্যও মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটের কবলে পড়ে আটকে থাকতে হচ্ছে ঘরে ফেরা মানুষদের।

সোনারগাঁ প্রতিনিধি জানান, ঢাকা-সোনারগাঁর এশিয়ান হাইওয়ে সড়কে দীর্ঘ ১২ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সোনারগাঁর কাঁঠালিয়া থেকে শুরু করে রূপগঞ্জের কাঞ্চন পর্যন্ত তীব্র এ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন সাধারণ যাত্রীসহ গরুভর্তি ট্রাক ড্রাইভার ও গরু ব্যবসায়ীরা। তা ছাড়া বিভিন্ন হাটগামী গরুভর্তি ট্রাক আটকা পড়ে রয়েছে দীর্ঘ সময় ধরে। গতকাল সোমবার সাড়ে ১২টা থেকেই এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

পাটুরিয়ায় যানজট: ঈদে ঘরমুখো যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বেড়েছে পাটুরিয়া ঘাটে। নির্বিঘ্নে যাত্রী পারাপারের জন্য ঘাটে ফেরির সংখ্যা বাড়ালেও তিনটি ফেরি বিকল রয়েছে। যে কারণে ঘাটে থেমে থেমে বাড়ছে যানবাহনের সারি। সোমবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পাটুরিয়া ঘাটে এক থেকে দু্ই কিলোমিটার পর্যন্ত যানবাহনের সারি দেখা গেছে। নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে তিন শতাধিক ট্রাক।

মেরামত করা হচ্ছে মহাসড়ক: ধামরাই প্রতিনিধি জানান, স্থানীয় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর মাটি ও বালু দিয়ে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সংস্কার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। গতকাল সোমবার ধামরাইয়ের সুতিপাড়া এলাকায় মহাসড়কে এ সংস্কার করতে দেখা যায়। সম্প্রতি প্রবল বর্ষণের কারণে ধামরাই উপজেলার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ইসলামপুর, খাতরা, জয়পুরা, কালামপুর, সুতিপাড়া ও বাথুলি এলাকার সড়কে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ঈদ উপলক্ষে মাটি দিয়ে জোড়াতালির মাধ্যমে এ সড়ক চলাচলের উপযোগী করার চেষ্টা চলছে।

কমলাপুর রেলস্টেশন: গতকাল সোমবার সকালে কমলাপুর রেলস্টেশনে মোট সাতটি ট্রেন ছাড়তে বিলম্ব হয়েছে। এর মধ্যে চারটি ট্রেন নির্ধারিত সময়ের এক থেকে দুই ঘণ্টা বেশি দেরি করে ছেড়েছে। এ বিষয়ে কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, কয়েকটি ট্রেন ২০ থেকে ৩০ মিনিট দেরিতে ছেড়েছে। তবে এটি বিপর্যয় নয়, বিলম্ব। যেসব ট্রেন স্টেশনে আসতে দেরি করেছে সেগুলোই ছাড়তে বিলম্ব হয়েছে।

বাহাদুর বেপারীপ্রথম পাতা
ঈদে ঘরে ফেরার শুরুতেই মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে শুরু হয়েছে তীব্র যানজট। যাত্রীরা পড়ছেন মহাদুর্ভোগে। যানজট আগামী দু-তিন দিন আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ ঈদের আগে আগামী তিন দিন মহাসড়কে যানবাহনের চাপ আরও বাড়বে বলে মনে করছেন পরিবহন মালিকরা। মহাসড়কে যানজটের কারণে বাস সঠিক সময়ে গন্তব্যে পেঁৗছতে পারছে...