APORADHER DAYRE THEKE
দুই শতাধিক চাঁদাবাজের তালিকা হাতে নিয়ে মাঠে নেমেছে পুলিশ। চাঁদাবাজের সঙ্গে আছে ঝুট ব্যবসায়ীরাও। এদের বেশির ভাগই ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী। তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীরাও রয়েছে চাঁদাবাজদের এ তালিকায়। তালিকা ধরে শুরু হচ্ছে অভিযান। কোরবানির ঈদ চাঁদাবাজিমুক্ত রাখতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের আট ক্রাইম ডিভিশনকে বিশেষ নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে চাঁদাবাজির ঘটনাকে প্রাধান্য দিয়ে আরও কয়েকটি বিষয়ে ত্বরিৎ সেবা দিতে ডিএমপি সদর দপ্তরে চালু করা হয়েছে বিশেষ হেল্প ডেস্ক। মোবাইল ফোনে চাঁদা চাইলে যে কেউ এই ডেস্কের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। ডেস্কের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন। গতকাল ডিএমপি’র অপরাধ ও আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মাসিক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভা শেষে ডিএমপি’র ক্রাইম জোনের ৮ উপ-কমিশনারকে চাঁদাবাজদের এই তালিকা দিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন ডিএমপি কমিশনার। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। ডিএমপি’র কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়ার সভাপতিত্বে এ সভায় পুলিশের ৪৯ থানার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) থেকে শুরু করে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় উপস্থিত ছিলেন- এমন একাধিক সূত্রে জানা গেছে, কোরবানির ঈদে আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা শান্তিপূর্ণ রাখার বিষয়টিতে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হয়। ঈদকে কেন্দ্র করে সাধারণত সবচেয়ে বেশি চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটে থাকে। শীর্ষ সন্ত্রাসী থেকে শুরু করে ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাকর্মীরা এই চাঁদাবাজির সঙ্গে যুক্ত থাকে। এ কারণে ঈদের আগে চাঁদাবাজদের তালিকা করা হয়েছে। তালিকার বিষয়টি কঠোর গোপনীয়তা পালন করছেন পুলিশ কর্মকর্তারা। যাতে কোনও চাঁদাবাজই তার নাম তালিকায় রয়েছে কিনা তা আগে থেকে জানতে না পারেন এ কারণে কঠোর নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানিয়েছেন, দুই শতাধিক চাঁদাবাজের নাম তালিকায় রয়েছে। প্রতিটি ক্রাইম ডিভিশনে ২০ থেকে ৩০ জনের নাম রয়েছে। যারা ঝুট ব্যবসাসহ অন্যান্য অপরাধ কর্মকাণ্ডের সঙ্গেও জড়িত। তারা কে কার প্রশ্রয়ে অপরাধ করছে তারও বিস্তারিত তথ্য রয়েছে ওই তালিকায়। পুলিশ ওই তালিকা ধরেই আইনগত ব্যবস্থা নেবে।
ডিএমপি সূত্র জানায়, চাঁদাবাজি বন্ধ করতে আজ বৃহস্পতিবার থেকেই ডিএমপি সদর দপ্তরে স্থাপিত হেল্প ডেস্ক কাজ শুরু করছে। টেলিফোনে হুমকি, চাঁদা দাবি, হয়রানি বা প্রতারণা, অপহরণ ও মুক্তিপণ দাবি, ইন্টারনেটে হয়রানি ও প্রতারণা, নিখোঁজ ব্যক্তির অনুসন্ধান এবং প্রবাসী কল্যাণ (যদি কোন প্রবাসী বিদেশ থেকে আইনগত সহায়তা চায়) সম্পর্কিত বিষয়গুলোতে এই ডেস্ক থেকে আইনগত সহায়তা দেয়া হবে। ডিএমপি’র দুই যুগ্ম কমিশনার (ক্রাইম) এবং (ডিবি) সমন্বয় করে এই ডেস্ক পরিচালনা করবেন। ডিএমপি’র একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, অনেক সময় চাঁদাবাজি বা অপহরণের ঘটনায় থানা পুলিশ মামলা বা অন্যান্য আইনি প্রক্রিয়ার কারণে অ্যাকশনে যেতে সময় নেয়। এখানে অভিযোগ আসার সঙ্গে সঙ্গে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। হেল্প ডেস্ক প্রয়োজনীয় আইনগত সহায়তা দেয়াসহ থানায় প্রেরণ এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগে অবহিতর মাধ্যমে সাহায্য প্রদান করা হবে। সূত্র জানায়, ঈদেও সময় অজ্ঞান ও মলম পার্টির তৎপরতা বাড়ে, এ কারণে অনেকে টাকা খোয়া যায়। এমনকি মৃত্যুও ঘটে। তাই আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে অজ্ঞান ও মলম পার্টি নিয়ন্ত্রণে ডিএমপি’র কর্মকর্তাদের কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ মামলা পর্যালোচনা ও রহস্য উদ্ঘাটনের তাগিদও দেন ডিএমপি কমিশনার।
সূত্র জানায়, ডিএমপিসহ সারা দেশে অপরাধী শনাক্তকরণে ক্রিমিনাল ডাটাবেজ (সিডিএমএস) তৈরির কার্যক্রম চলছে। তবে এবার ডিএমপি’র প্রতিটি ক্রাইম জোন থেকে একটি করে থানা নির্বাচন করে কার্যক্রম তরান্বিত করার কথা বলেন কমিশনার। থানায় অপরাধীর সার্বিকচিত্র উল্লেখ করে কম্পিউটারে ডাটাবেজে রাখা হয়। এই ডাটাবেজে কোন আসামির নাম-পরিচয় দিয়ে সার্চ দিলে তার আগের অপরাধ কর্মকাণ্ডের বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়।
ডিএমপি’র উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মুনতাসিরুল ইসলাম ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, অপরাধ ও আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মাসিক সভায় বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন কমিশনার। কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে থাকার কারণে পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ দেন কমিশনার। দু’-একটি ঘটনা যে ঘটেছে তা দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। এছাড়া ভাল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ডিএমপি’র বিভিন্ন বিভাগ, বিভিন্ন পদে কয়েকজন সদস্যকে পুরস্কার দেয়া হয়। এতে করে কাজে উৎসাহ বাড়বে বলে মনে করেন কমিশনার।

অর্ণব ভট্টপ্রথম পাতা
দুই শতাধিক চাঁদাবাজের তালিকা হাতে নিয়ে মাঠে নেমেছে পুলিশ। চাঁদাবাজের সঙ্গে আছে ঝুট ব্যবসায়ীরাও। এদের বেশির ভাগই ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী। তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসীরাও রয়েছে চাঁদাবাজদের এ তালিকায়। তালিকা ধরে শুরু হচ্ছে অভিযান। কোরবানির ঈদ চাঁদাবাজিমুক্ত রাখতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের আট ক্রাইম ডিভিশনকে বিশেষ নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে চাঁদাবাজির ঘটনাকে...