আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।
নাইন-ইলেভেনের পর যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বহুজাতিক বাহিনীর হামলায় ক্ষমতাচ্যুত আফগান সশস্ত্র সংগঠন তালেবানের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।
দীর্ঘ ১৭ বছরের যুদ্ধের সমাপ্তি টানতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এই আলোচনা চান বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনীর নেতৃত্বে থাকা জন নিকোলসন।

জেনারেল নিকোলসন বলেছেন, ‘আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পিও জানিয়েছেন, বিদেশি বাহিনীর ভূমিকা কি হবে সে বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র তালেবানের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় প্রস্তুত। আমরা আশা করছি তারা বিষয়টি উপলব্ধি করবে এবং এর মাধ্যমে শান্তি প্রক্রিয়া সামনের দিকে অগ্রসর হবে।’

এদিকে কাতারে অবস্থানরত তালেবানের রাজনৈতিক দফতরের একজন মুখপাত্র সোহাইল শাহিন জানিয়েছেন তারা নিকোলসনের বক্তব্য নিশ্চিত হওয়ার জন্য এখনও অপেক্ষা করছেন। বিষয়টি সত্যি হলে তারা নতুন এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাবেন। তিনি বলেছেন, ‘এটি হচ্ছে তেমন একটা উদ্যোগ যা আমরা চাই এবং এটার জন্যই আমরা অপেক্ষায় ছিলাম। কারণ আমরা চেয়েছি আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসুক।’

তালেবান এই মুখপাত্র এটাও আশা করেছেন, যে আলোচনার উদ্যোগ নিতে হলে জাতিসংঘের কালো তালিকা থেকে তালেবান নেতাদের নাম বাদ দিতে হবে। যাতে বিশ্বব্যাপী তাদের ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা ওঠে যায়। তিনি বলেন, ‘এখন বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহারই আফগানিস্তানের জন্য বড় ইস্যু এবং তালেবানরা এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী।’

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আফগান যুদ্ধের অগ্রগতি নিয়ে উদ্বিগ্ন। কারণ গত বছর তালেবানবিরোধী বিমান হামলা জোরদার করা সত্ত্বেও দেশটির বেশিরভাগ অঞ্চল এখনও তালেবানের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

এর আগে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি তালেবানকে সরকারের সঙ্গে আলোচনার জন্য আহ্বান জানিয়েছিলেন। সংগঠনটিকে বৈধ রাজনৈতিক দল হিসেবে স্বীকৃতির ব্যাপারেও ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তখন তালেবান যোদ্ধারা এ বিষয়ে শুধু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গেই আলোচনা হতে পারে বলে আফগান সরকারের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে।

আর যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পিও জানিয়েছিলেন পুরো আলোচনা হবে আফগান সরকারের নেতৃত্বে। ওয়াশিংটন সেই আলোচনায় কেবল অংশীদার হবে।

উল্লেখ্য, সবশেষ ঈদুল ফিতরের সময় আফগান সরকার কর্তৃক ঘোষিত নিঃশর্ত যুদ্ধবিরতিতে সারা দেয় তালেবান। সেসময় দেশটির রাজধানী কাবুলে তালেবানের অনেক সিনিয়র নেতাদের প্রকাশ্যে দেখা যায়। তবে ঈদের পর থেকে আবার বেশ কয়েকটি রক্তক্ষয়ী হামলা চালিয়েছে তালেবান সশস্ত্র যোদ্ধারা। যাতে বহু লোক হতাহত হয়েছে।-
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। সূত্র : আল জাজিরা।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/07/820.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/07/820-300x300.jpgশিশির সমরাটআন্তর্জাতিক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক । নাইন-ইলেভেনের পর যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বহুজাতিক বাহিনীর হামলায় ক্ষমতাচ্যুত আফগান সশস্ত্র সংগঠন তালেবানের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। দীর্ঘ ১৭ বছরের যুদ্ধের সমাপ্তি টানতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এই আলোচনা চান বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনীর নেতৃত্বে থাকা...