1440772719
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ৫৬ হাজার বর্গমাইলে কোন খুনির নামে স্থাপনা থাকতে পারে না। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান শত শত মুক্তিযোদ্ধা সেনা অফিসারকে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে। ইনডেমনিটি অধ্যাদেশের মাধ্যমে খুনিদের বিচার বন্ধ করতে চেয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধী শাহ আজিজুর রহমানকে এ দেশের প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছিল। তাই মুক্তবুদ্ধি চর্চার তীর্থস্থান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে খুনি জিয়াউর রহমানের নামে হল থাকতে পারে না। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও ছাত্রলীগকে দৃঢ় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান ছাত্রলীগের সাবেক এ নেতা।

শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল শাখা ছাত্রলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খালিদ বলেন, সম্প্রতি খুনি-যুদ্ধাপরাধীদের নামে খুলনায় একটি সড়ক ও কুষ্টিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হল থাকায় তা পরিবর্তনের জন্য আদালত নির্দেশ দিয়েছেন। তেমনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন খুনির নামে হল থাকতে পারে না। এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবনে বঙ্গমাতার অসামান্য অবদানের নানা দিক তুলে ধরেন।

হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি খাদিজাতুল কোবরার সভাপতিত্বে হলের প্রাধ্যক্ষ্য ড. সাবিতা রেজওয়ানা রহমান, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, আওয়ামী লীগের উপ কমিটির সহ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান, সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স বক্তব্য রাখেন।

তুনতুন হাসানপ্রথম পাতা
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ৫৬ হাজার বর্গমাইলে কোন খুনির নামে স্থাপনা থাকতে পারে না। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান শত শত মুক্তিযোদ্ধা সেনা অফিসারকে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে। ইনডেমনিটি অধ্যাদেশের মাধ্যমে খুনিদের বিচার বন্ধ করতে চেয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধী শাহ আজিজুর রহমানকে এ দেশের...