1438411050
কেউ কেউ পৌঁছে গেছেন জীবন সায়াহ্নে। কিন্তু ছিল না রাষ্ট্রীয় পরিচয়। সভ্য পৃথিবীর মাঝে থেকেও ওদের জীবন ঢেকেছিল অন্ধকারে। অবশেষে অবসান ঘটল সেই বঞ্চনার। প্রথমবারের নিজ দেশে ঘুম ভাঙল সাবেক ছিটমহলবাসীদের।

শনিবার প্রথম প্রহরে বাংলাদেশের সীমানায় যোগ হওয়া ছিটমহলগুলোতে ওড়ানো হয় বাংলাদেশের পতাকা। এর আগে রাত ১২টা ১ মিনিটে ৬৮ প্রদীপ জ্বেলে নিজেদের অভিশপ্ত জীবনের অবসান ঘটান ছিটমহলবাসীরা।

ভারত ও বাংলাদেশের স্থলসীমান্ত চুক্তি অনুযায়ী, ১ আগস্ট থেকে বাংলাদেশের ভেতরে থাকা ১৭ হাজার ১৬০ দশমিক ৬৩ একর আয়তনের ভারতের ১১১টি ছিটমহল বাংলাদেশের ভূখণ্ড। আর ভারতের মধ্যে থাকা ৭ হাজার ১১০ দশমিক ০২ একর আয়তনের বাংলাদেশের ৫১টি ছিটমহল মিলে গেছে ভারতের মানচিত্রে।

শনিবার সূর্যোদয়ের পরপরই কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার অভ্যন্তরে দাশিয়ার ছড়ায় ওড়ানো হয়েছে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা। পতাকা উত্তোলন করেন ফুলবাড়ী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাসির উদ্দিন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ-ভারত ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির বাংলাদেশ অংশের সভাপতি মইনুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা।

জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সঙ্গে সঙ্গে সাবেক ছিটমহল দাশিয়ার ছড়ায় শত শত নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোর আনন্দে মেতে ওঠে। ছড়িয়ে পড়ে উল্লাস। মুহুর্মুহু করতালি ও স্লোগানে আকাশে-বাতাসে ছড়িয়ে যায় মুক্তির বারতা।

বাহাদুর বেপারীপ্রথম পাতা
কেউ কেউ পৌঁছে গেছেন জীবন সায়াহ্নে। কিন্তু ছিল না রাষ্ট্রীয় পরিচয়। সভ্য পৃথিবীর মাঝে থেকেও ওদের জীবন ঢেকেছিল অন্ধকারে। অবশেষে অবসান ঘটল সেই বঞ্চনার। প্রথমবারের নিজ দেশে ঘুম ভাঙল সাবেক ছিটমহলবাসীদের। শনিবার প্রথম প্রহরে বাংলাদেশের সীমানায় যোগ হওয়া ছিটমহলগুলোতে ওড়ানো হয় বাংলাদেশের পতাকা। এর আগে রাত ১২টা ১...