009_162534
উচ্চ আদালতে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও রাজশাহী নগর বিএনপি সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু।

বুধবার রাত সোয়া ৮টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কারাবন্দি বিএনপি নেতা মিনুর জামিনের কাগজপত্র আসে। এরপর পাহারারত পুলিশ সদস্যদের সরিয়ে নেওয়া হয়। তবে অসুস্থ থাকায় মিনু এখনো হাসপাতালের এক নম্বর ভিআইপি কেবিনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গত ৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে বুকে ব্যথা অনুভব করলে কারাগার থেকে মিনুকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতলের নিবির পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। এরপর তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে তাকে হাসপাতালের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার শফিকুল ইসলাম ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, বিএনপি নেতা মিনুর সবকটি মামলায় উচ্চ আদালত জামিন দিয়েছেন। জামিনের কাগজপত্রগুলো বুধবার বিকেলে কারাগারে এসে পৌঁছায়। রাত ৮টার দিকে কারাগার থেকে তাকে মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, হাইকোর্ট থেকে মিজানুর রহমান মিনুর জামিন দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি এখনো অসুস্থ থাকায় হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গত ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরে নাশকতার সাতটি মামলায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও রাজশাহী মহানগর সভাপতি সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু গত ১৩ জুলাই রাজশাহীর আদালতে জামিন আবেদন করেন। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরপর গত ২৩ আগস্ট নাশকতার মামলায় কারাগারে আটক থাকা মিজানুর রহমান মিনুকে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় জামিনের আবেদন জানান মিনু। পরে আদালত জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে ফের তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

হীরা পান্নাপ্রথম পাতা
উচ্চ আদালতে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও রাজশাহী নগর বিএনপি সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু। বুধবার রাত সোয়া ৮টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কারাবন্দি বিএনপি নেতা মিনুর জামিনের কাগজপত্র আসে। এরপর পাহারারত পুলিশ সদস্যদের সরিয়ে নেওয়া হয়। তবে অসুস্থ থাকায় মিনু এখনো হাসপাতালের এক...