1437895369
ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের নির্বাচনে এগিয়ে আছেন যথাক্রমে সাইফুর রহমান সোহাগ ও জাকির হোসেন আসছেন। সাইফুর রহমান ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এবং জাকির হোসেন সহ-সম্পাদক।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে রবিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহণ শেষে বিজয়ী নতুন নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করা হবে। মিলনায়তনে স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে কাউন্সিলরদের ভোটের মাধ্যমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করার প্রক্রিয়া চলছে। নির্বাচনে সভাপতি পদে ১২ জন প্রার্থী এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ২৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সরাসরি কোন প্যানেল ঘোষণা না হলেও বড় সিন্ডিকেটটি সোহাগ-জাকিরকে সমর্থন দেওয়ার তাদের বিজয়ী হওয়া নিশ্চিত। সকাল থেকেই এই দু’জন বিজয়ী হচ্ছেন বলে সবার মুখে আলোচনাও চলছে।

সূত্র জানায়, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত শিকদারের নেতৃত্বাধীন কথিত ‘সিন্ডিকেট’ থেকে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো প্রার্থী ঘোষণা দেওয়া হয়নি। তবে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতে ঐ সিন্ডিকেটের পক্ষ থেকে অনানুষ্ঠানিকভাবে সংগঠনটির সভাপতি পদের জন্য ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক জাকির হোসেনকে সমর্থন দিয়েছে। সোহাগের বাড়ি মাদারীপুর, আর জাকিরের বাড়ি মৌলভীবাজার। সোহাগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের ২০০৫-০৬ শিক্ষাবর্ষের এবং জাকির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। এছাড়া তারা দুজনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল ছাত্রলীগ কমিটির নেতৃত্বে ছিলেন।

ছাত্রলীগের দুই দিনব্যাপী ২৮তম জাতীয় সম্মেলনের শেষ দিনও আজ। শনিবার সকালে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

ছাত্রলীগের ১১০টি ইউনিটের প্রায় তিন হাজার কাউন্সিলর পরবর্তী দুই বছরের জন্য তাদের নেতা নির্বাচন করবেন। কাউন্সিলরা স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন। ভোট গ্রহণের শুরুতে ভোট দিতে যান রংপুর বিভাগের পঞ্চগড় ও ঠাকুরগাঁও জেলার কাউন্সিলরা।

এর আগে সকাল ১০টা থেকেই দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হয়। শুরুতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করেন বর্তমান কমিটির সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম, সম্মেলনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার সুমন কুন্ডু, নির্বাচন কমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, শেখ রাসেল।

ভোট গ্রহণ চলাকালে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত শিকদার, একেএম এনামুল হক শামীম, ইসহাক আলী খান পান্না, ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি এইচ বদিউজ্জামান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম, সংগঠনটির সাবেক নেতারা এবং আসন্ন নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি নির্বাচনের জন্য গঠিত নির্বাচন কমিশনের সদস্যরা সকালে প্রার্থী যাচাই-বাছাই করেছেন। অনেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহারও করেছেন। বিপুলসংখ্যক প্রার্থী নিয়ে নির্বাচন সম্ভব না হওয়ায় মেধাবী, দক্ষ ও যোগ্যদের প্রার্থী হিসেবে রাখা হয়েছে। এখন ১২ জন সভাপতি ও ২৮ জন সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন। শনিবার সভাপতি পদে ৬৪ জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ১৪২ জনের নাম ছিল।

সংগঠনের নেতৃত্বে কারা আসবেন তা ঠিক করতে সাবেক নেতাদের দুই সিন্ডিকেটের শীর্ষনেতারা দফায় দফায় বৈঠক করছেন। শনিবার দুপুর থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে কয়েক দফা দুই সিন্ডিকেটের নেতাদের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী সাইফুজ্জামান শিখর, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত শিকদার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবু, সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, বর্তমান সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বৈঠকে উপস্থিত আওয়ামী লীগের এশাধিক নেতা জানান, কোন ধরনের সমঝোতা ছাড়াই বৈঠক শেষ হয়েছে।

সুরুজ বাঙালীজাতীয়
ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের নির্বাচনে এগিয়ে আছেন যথাক্রমে সাইফুর রহমান সোহাগ ও জাকির হোসেন আসছেন। সাইফুর রহমান ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এবং জাকির হোসেন সহ-সম্পাদক। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে রবিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহণ শেষে বিজয়ী নতুন নেতৃত্বের নাম...