1445105584 - Copy
প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছে আওয়ামী লীগ। জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নেয়া হয়েছে মহাপরিকল্পনা। সত্, যোগ্য, মেধাবী, দলের জন্য নিবেদিত ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী ক্লিন ইমেজের প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার জন্য ইতিমধ্যে দলের হাইকমান্ড নির্দেশ দিয়েছেন। বিতর্কিত কেউ মনোনয়ন পাবেন না।

প্রার্থী মনোনয়ন দিতে ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা ও জেলায় দলের সংসদীয় বোর্ড গঠন করা হবে। তৃণমূলের এসব সংসদীয় বোর্ডের মতামতের ভিত্তিতেই দলীয় একক প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হবে। আগামী ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে গঠনতন্ত্রে সংশোধনীর মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে।

সম্প্রতি মন্ত্রিসভার বৈঠকে স্থানীয় সরকার আইন (সংশোধনী) পাস হওয়ায় আগামী ডিসেম্বরে অনুষ্ঠেয় পৌরসভা নির্বাচন থেকে শুরু করে পরবর্তীতে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা, জেলা পরিষদ ও সিটি করপোরেশনসহ সব স্থানীয় নির্বাচন হবে দলীয় প্রতীক ও দলীয় মনোনয়নে। এর আগে একমাত্র জাতীয় নির্বাচন দলীয়ভাবে হতো। তাই জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড রয়েছে। এই সংসদীয় বোর্ডের পক্ষে ইউনিয়ন পর্যায়ে বা পৌরসভায় প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার কাজ করা সম্ভব না। এর জন্য আলাদা ফোরাম থাকতে হবে।

তাই সংসদীয় বোর্ডের মতোই তৃণমূল পর্যায়েও বোর্ড গঠন করে দেয়া হবে। তবে কোন্ পর্যায়ের জন্য কোন্ বোর্ড কাজ করবে সেটাও নির্দিষ্ট থাকবে। এ জন্য আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন আনা হচ্ছে। ২০১২ সালের ২৯ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ডিসেম্বরেই তিন বছর মেয়াদি এ কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হবে। তাই ডিসেম্বরেই সম্মেলন করে গঠনতন্ত্রে সংশোধনী আনার সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছে আওয়ামী লীগ।

অন্য দল থেকে আসা নব্য আওয়ামী লীগার যাদের কেউ কেউ দলের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছেন তাদের এবং পরগাছাদের মনোনয়ন না দেয়ার সিদ্ধান্ত রয়েছে দলটির। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের অনানুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কার্যক্রম, দলের গঠনতন্ত্র, ইশতেহার ইত্যাদি তৈরির কাজের সঙ্গে যারা যুক্ত থাকেন তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে ১৪ দলীয় জোটগতভাবে আওয়ামী লীগ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ নিবে কিনা সেটি শিগগিরই চূড়ান্ত করা হবে।

দলীয়ভাবে নির্বাচনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে আওয়ামী লীগ নেতারা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, জাতীয় সংসদ থেকে শুরু করে স্থানীয় পর্যায়ের সব নির্বাচনেই প্রতিটি জায়গায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী থাকে কয়েকজন করে। প্রত্যেকেই দলের মনোনয়ন বা সমর্থনের জন্য শক্ত অবস্থান নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন। একমাত্র সংসদ নির্বাচনেই একজন করে প্রার্থী দেয়া সম্ভব হয়। অন্যান্য ক্ষেত্রে এটা করা সম্ভব হয় না। ফলে দলের একাধিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমে যান। দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা বিভক্ত হয়ে পড়েন প্রার্থীদের পক্ষ নিয়ে। দলীয়ভাবে মনোনয়ন দেয়ার সুযোগ না থাকায় বিদ্রোহী প্রার্থী দমনে কোনো পদক্ষেপ নেয়া যায় না। এর ফলে ভোটও ভাগ হয়ে যায় এবং বিজয়ের সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও অনেক জায়গায় দলের প্রার্থীরা পরাজিত হন। গত বছর অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগে এ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করে। দলীয় মনোনয়ন ও দলীয় প্রতীকে নির্বাচনের পদ্ধতি চালু হওয়ায় একক প্রার্থী দেয়ার ক্ষেত্রে সুবিধাজনক অবস্থানে থাকবে আওয়ামী লীগ। নির্দলীয় স্থানীয় সরকারে যারা নির্বাচিত হন তারা দলের লোক হলেও দলের প্রতি তাদের দায়বদ্ধতা থাকে না। কারণ দল তাদের সমর্থন দিলেও নির্বাচনী ব্যবস্থা নির্দলীয় হওয়ায় দল তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, দলীয়ভাবে নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি নিচ্ছে আওয়ামী লীগ। এ জন্য তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করছে। প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে সব ধরনের প্রতিবন্ধকতা দূর করতে গঠনতন্ত্রে সংশোধনী আনা হতে পারে।

বর্তমানে দেশে ৩২৩টি পৌরসভা ও ৪ হাজার ৫৫৩টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। দলীয়ভাবে নির্বাচনের বিধান সম্বলিত আইনের গেজেট পাওয়ার পর নির্বাচন কমিশন বিধি সংশোধনের কাজ শুরু করব। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সঙ্গে মিল রেখে স্থানীয় সরকারভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর বিধি করা হবে।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/1445105584-Copy.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2015/10/1445105584-Copy-300x214.jpgহাসন রাজাজাতীয়
প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছে আওয়ামী লীগ। জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নেয়া হয়েছে মহাপরিকল্পনা। সত্, যোগ্য, মেধাবী, দলের জন্য নিবেদিত ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী ক্লিন ইমেজের প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার জন্য ইতিমধ্যে দলের হাইকমান্ড নির্দেশ দিয়েছেন। বিতর্কিত কেউ মনোনয়ন পাবেন না। প্রার্থী...