চট্টগ্রাম অফিস । চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রতিনিধি
শৃংঙ্খলা ভঙ্গ করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রক্টর অফিস ও সাংবাদিকদের উপর হামলাসহ এক শিক্ষার্থী অপরহণ করে টাকা আদায়ের অভিযোগে ৮ শিক্ষার্থীকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।
সোমবার বিকাল ৪টার দিকে সাংবাদিকদের প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে শৃংঙ্খলা ভঙ্গ করে মঙ্গলবার প্রক্টর অফিস ও কর্মরত সাংবাদিকদের গাড়িসহ তাদের উপর হামলা করায় দায়ে ৪ শিক্ষার্থীকে এবং প্রাণ রসায়ন বিভাগের সাজিক খান নামের এক শিক্ষার্থীকে অপহরণ করে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা আদায়ের ঘটনায় চার শিক্ষার্থীকে ২ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। সোমবার থেকে এ বহিষ্কারের কার্যদিন শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি।

বহিষ্কৃতরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশান বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের সাইফুল ইসলাম সাইফ, অর্থনীতি বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের মো. লোকমান হোসেন, আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের কনক শাহ জয় ও নাট্যকলা বিভাগের মাহমুছুল হাসান লোটাসকে প্রক্টর অফিস ও সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় বহিষ্কার করা হয়। সাইফুল ইসলাম সাইফ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সদস্য এবং সিটি মেয়র আ জ ম নাছিরের অনুসারী বলে ক্যাম্পাসে পরিচিত। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার এক শিক্ষার্থীকে অপহরণের দায়ে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের সাব্বির হোসেন, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের ইয়াসিন আরাফাত, আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের সফিকুল ইসলাম এবং একই বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ইফতেখার উদ্দিন রিয়াজকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়। সাব্বির বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপ অর্থ সম্পাদক ও আওমীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অফ রেসিডেন্স হেলথ অ্যান্ড ডিসিপ্লিন কমিটির এক বৈঠকে তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিশেষ ক্ষমতা বলে এই আট জনকে বহিষ্কার করা হয়। এছাড়াও তাদেরকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না এ বিষয়ে কারণর্দশাতে বলা হয়েছে। এছাড়াও হলের ভিতরে অবৈধ, বহিরাগত, অছাত্র এবং অনুমতি ছাড়া কেউ বসবাস করলে তার বিরুদ্ধে আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীকে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। এর জন্য প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইডি কার্ড সাথে রাখার জন্য অনুরোধ করেন তিনি।

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে পুলিশ প্রশাসনের কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়ে তিনি বলেন, ১৯৯২ ও ১৯৯৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট এক সিদ্ধান্তে বলা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে শৃংঙ্খলা রক্ষার দায়ে এবং ফৌজদারি মামলার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে পুলিশ প্রশাসনের পূর্নক্ষমতা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাণ রসায়ন বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনে মো.সাজিক খান নামের এক শিক্ষার্থীকে জিম্মি করে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করার অভিযোগ উঠে ছাত্রলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে। পরবর্তীতে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকার বিনিময়ে সাজিককে ছেড়ে দেয় সেই ছাত্রলীগ নেতা। এর আগে গত সোমবার রাতে হলে তল্লাশির কারণে মঙ্গলবার দফায় দফায় ছাত্রলীগের হামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল ধরনের ক্লাস ও পরিক্ষাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেন এবং শিক্ষক বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় ছাত্রলীগের একাংশ। এসময় সাংবাদিকদের দুটি গাড়িসহ মোট ১৬টি গাড়ি ও প্রক্টরের কক্ষসহ ১২টি কক্ষ ভাংচুর করে তারা। এছাড়াও শাটল ট্রেনের হুইস পাইপকেটে এক ঘণ্টা গেট অবরোধ করে রাখে।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/02/836.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/02/836-300x300.jpgজান্নাতুল ফেরদৌস মেহরিনস্বদেশের খবর
চট্টগ্রাম অফিস । চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রতিনিধি শৃংঙ্খলা ভঙ্গ করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) প্রক্টর অফিস ও সাংবাদিকদের উপর হামলাসহ এক শিক্ষার্থী অপরহণ করে টাকা আদায়ের অভিযোগে ৮ শিক্ষার্থীকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। সোমবার বিকাল ৪টার দিকে সাংবাদিকদের প্রেস ব্রিফিংয়ের...