1
লাইফস্টাইল ডেস্ক । বিশেষ প্রতিবেদক
আধুনিক এই সময়ে সবাই কর্মব্যস্ত। এত ব্যস্ততার মধ্যেও হয়তো নিজের প্রতি বেখেয়ালে কেউ কেউ অসুস্থ হয়ে পড়েন। বিশেষ করে গ্যাসের সমস্যায় পড়েননি এমন লোক খুঁজে পাওয়া দায়। একটু সতর্ক থাকলেই গ্যাসের সমস্যা দূর করা যায়। তাই গ্যাস দূর করতে কিছু টিপস দেওয়া হল।

খেয়াল করে দেখুন কোনও বিশেষ খাবার খাওয়ার ফলে গ্যাস হচ্ছে কি না। যদি কোনও খাবারকে আলাদা করে শনাক্ত করতে পারেন, তা হলে সেই খাবারকে বর্জন করে দেখুন। খাবার ভাল করে চিবিয়ে খান। শুনতে যতই অবাক লাগুক, অনেক সময়ই আমরা ভাল করে চিবিয়ে খাই না। আর তার থেকে শুরু হয় বড় সমস্যা। তাই খাওয়ার সময় আস্তে আস্তে খান। ভাল করে চিবিয়ে খান। খাওযার সময়ে ফোনে কথা বলা বা অন্য কিছু করবেন না।

একবারে বেশি না খেয়ে বারে বারে অল্প করে খান। সহজে হজম হবে। গ্যাসের সমস্যা হবে না। যদি দেখেন পেটে গ্যাস জমে রয়েছে, তা হলে অবশ্যই খানিকটা হেঁটে আসুন। দেখবেন গ্যাস বেরিয়ে গিয়ে অনেকটা স্বস্তি বোধ করবেন। কার্বনেটেড ড্রিঙ্ক খাওয়া একেবারেই ছেড়ে দিন। এই ধরণের পানীয়তে কার্বন ডাই অক্সাইড থাকার ফলে বুদবুদ সৃষ্টি হয়ে গ্যাস তৈরি করতে পারে।

পেটে গ্যাস হওয়া কমাতে পোশাকের দিকেও নজর দেওয়া দরকার! খুব আঁটসাঁটও পোশাক পরলে খাওয়ার পরে অস্বস্তি হবে। তা ছাড়া শরীরের মধ্যে গ্যাস চলাফেরা করতে না পেরে এক জায়গায় জমে গিয়ে বিপত্তির সৃষ্টি করবে। কথা বলা বা খাওয়ার সময়ে বাইরের বায়ুও শরীরে প্রবেশ করে। এর ফলেও গ্যাস জমে শরীরে। সেই কারণে ধুমপান করলে বা খুব বেশি চুইংগাম খেলে শরীরে বাতাস ঢুকে যায়। তাই এগুলি এড়িয়ে চলা দরকার। নিয়মিত ব্যায়াম করুন। এতে শরীরের সব অঙ্গই সচল থাকে। হজমে সাহায্য করে। ফলে গ্যাস জমতে পারে না।

তালুকদার বাবুলস্বাস্থ্য কথা
লাইফস্টাইল ডেস্ক । বিশেষ প্রতিবেদক আধুনিক এই সময়ে সবাই কর্মব্যস্ত। এত ব্যস্ততার মধ্যেও হয়তো নিজের প্রতি বেখেয়ালে কেউ কেউ অসুস্থ হয়ে পড়েন। বিশেষ করে গ্যাসের সমস্যায় পড়েননি এমন লোক খুঁজে পাওয়া দায়। একটু সতর্ক থাকলেই গ্যাসের সমস্যা দূর করা যায়। তাই গ্যাস দূর করতে কিছু টিপস দেওয়া হল। খেয়াল...