Brammoman
মেহেরপুরের গাংনীতে তিনজনের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল আমিন এ দণ্ড প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- গাংনী উপজেলার করমদি গ্রামের ডা. ইকাব আলীর ছেলে মজিবর রহমান (৩০), দেবীপুর গ্রামের ইন্তাজুলের ছেলে সুজন (২২) ও একই গ্রামের রঞ্জিত আলীর ছেলে সেলিম(১৮)।
দণ্ডিতদের মেহেরপুর জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকরাম হোসেন ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, করমদি গ্রামের মজিবর রহমান তার মেয়ে দেবীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী চায়না খাতুনের সাথে তেরাইল গ্রামের জনৈক মোমিনের বিয়ের আয়োজন করেন। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল আমিন ও পুলিশের একটি টীম ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ১৯২৯ সালের (সংশোধনী ১৯৮৪ সালের) ৬ ধারা অনুযায়ী মজিবর রহমানকে দোষী সাব্যস্ত করে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন।

ভ্রাম্যমান আদালতের সহযোগিতা করেন পলাশীপাড়া সমাজ কল্যাণ সমিতির ডিপিডি নারগিস পারভীন মুক্তি, ইউসি গোলাম কিবরিয়া ও আব্দুল ওহাব।

অপরদিকে দেবীপুর গ্রামের ইন্তাজুলের ছেলে সুজন ও একই গ্রামের রঞ্জিত আলীর ছেলে সেলিম সোমবার সন্ধ্যায় গ্রামের বাজারে জুয়া খেলা করছিলেন। এসময় পুলিশের একটি টীম তাদের আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করে। আদালত প্রকাশ্য জুয়া আইন ১৮৬৭ এর ৪ ধারা মোতাবেক উভয়কে ১০ দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন

তুনতুন হাসানস্বদেশের খবর
মেহেরপুরের গাংনীতে তিনজনের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল আমিন এ দণ্ড প্রদান করেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- গাংনী উপজেলার করমদি গ্রামের ডা. ইকাব আলীর ছেলে মজিবর রহমান (৩০), দেবীপুর গ্রামের ইন্তাজুলের ছেলে সুজন (২২) ও...