image_256764.1422351352
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বাংলাদেশকে বাংলাদেশের পথে সচল ও নিরাপদ রাখতে খুনী-জঙ্গি উৎপাদন ও পুনরুৎপাদনের কারখানা বিএনপি-খালেদা চক্রকে অচল করতে হবে’।
তিনি বিএনপি’কে পঁচাত্তরে জন্মানো রাজনীতির ‘বিষবৃক্ষ’ বলে বর্ণনা করে বলেন, ‘বিষবৃক্ষের শুধু ডালপালা ছাঁটলেই হবে না, তাকে সমূলে উপড়ে ফেলতে হবে।’
হাসানুল হক ইনু আজ শনিবার শোক দিবসের ভোরে ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পঅর্পণ করে দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে জাসদ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতয় এ কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী তার বক্তৃতার শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারসহ এই দিনে ঘাতকদের হাতে শহীদ সকলের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, ‘একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে সাম্প্রদায়িক খুনীচক্র পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। জাতির পিতাকে হত্যার মধ্য দিয়ে তারা বাংলাদেশ, আমাদের মুক্তিচেতনা ও ইতিহাসকে হত্যা করতে চেয়েছিল।’
‘কিন্তু ঘাতকদের সেই ষঢ়যন্ত্র সফল হয়নি, শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ আবার বাংলাদেশের পথে ফিরে আসছে’ উল্লেখ করে একইসাথে সতর্কবাণীও উচ্চারণ করেন একাত্তরে দশ হাজার গেরিলা মুক্তিযোদ্ধার প্রশিক্ষক হাসানুল হক ইনু।
তিনি বলেন, ‘পঁচাত্তরের পর আবার জাতি একুশে আগস্টের গ্রেনেড হামলায় বিক্ষত হয়েছে, জঙ্গিদের হাতে খুন হয়েছেন শাহ এএমএস কিবরিয়া, আহসানুল্লাহ মাস্টার, ব্লগাররা, আক্রান্ত হয়েছে পীরের মাজার, রেহাই পায়নি উদীচীর মঞ্চ, আগুনসন্ত্রাসে পুড়েছে মানুষ। একারণেই জঙ্গিবাদী জামাত-বিএনপি-খালেদা চক্রের হাত থেকে এখনও বাংলাদেশ নিরাপদ নয়।’
‘যতদিন খুনের কাঁচামাল সরবরাহের কারখানা জঙ্গিবাদী জামায়াত ও এর আশ্রয়দাতা বিএনপি-খালেদা চক্র সক্রিয় থাকবে, ততদিন নিরাপত্তা ও উন্নয়ন বারবার বাধার মুখে পড়বে’, উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এই সামরিক-সাম্প্রদায়িক-ধর্মতন্ত্র মিশ্রিত গোঁজামিলতন্ত্র প্রণেতা চক্রকে ঐক্যবদ্ধভাবে ধ্বংস করে বৈষম্যহীন, গণতান্ত্রিক, সমৃদ্ধ, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার মাধ্যমেই জাতির পিতার প্রতি প্রকৃত শ্রদ্ধা জানানো সম্ভব।’ ‘জাসদ এতে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে’, অঙ্গীকার করেন তিনি।
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের শীর্ষনেতাদের মধ্যে নাজমুল হক প্রধান এমপি, সাধারণ সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া, নারী জোটের আহ্বায়ক আফরোজা হক রীনা, মুক্তিযোদ্ধা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি এ্যাড হাবিবুর রহমান শওকত, যুবজোট সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও ত্যাগের ওপর আলোকপাত করেন।
জাসদের মহানগর সমন্বয়ক মীর হোসেন আখতারের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন শফিউদ্দিন মোল্লা, ওবায়দুর রহমান চুন্নু, শওকত রায়হান, ডা: মুশতাক আহমেদ, নুরুল আখতার, করিম শিকদার, মাইনুর রহমান, মুহিবুর রহমান মিহির, নাদের চৌধুরী প্রমূখ।
এর পরপরই জাতীয় প্রেসক্লাবে নবস্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে এবং তারপর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে (বিএফডিসি) বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
বিএফডিসি প্রাংগনে চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিচালক-শিল্পী সংগঠন আয়োজিত কাঙালীভোজ এবং নিজগৃহ দারুস-সালামে কাঙালীভোজ উদ্বোধন করে ইনু ছুটে যান ঢাকার দক্ষিণখানে। সেখানে আশিয়ান মেডিক্যাল কলেজ ময়দানে জাসদ মহানগর উত্তর আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের সভায় নেতাকর্মীর উদ্দেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী। এরপর বাংলাদেশ টেলিভিশনে আয়োজিত শোক দিবসের মিলাদ-মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন তিনি।

অর্ণব ভট্টজাতীয়
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বাংলাদেশকে বাংলাদেশের পথে সচল ও নিরাপদ রাখতে খুনী-জঙ্গি উৎপাদন ও পুনরুৎপাদনের কারখানা বিএনপি-খালেদা চক্রকে অচল করতে হবে’। তিনি বিএনপি’কে পঁচাত্তরে জন্মানো রাজনীতির ‘বিষবৃক্ষ’ বলে বর্ণনা করে বলেন, ‘বিষবৃক্ষের শুধু ডালপালা ছাঁটলেই হবে না, তাকে সমূলে উপড়ে ফেলতে হবে।’ হাসানুল হক ইনু আজ শনিবার শোক দিবসের ভোরে...