comilla_311804
কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আবদুল কাদের (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার বড়নীকুন্ডু গ্রামের শাহাদাৎ হোসেনের ছেলে। পুলিশে দাবি, নিহত কাদের আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য।
শনিবার ভোর রাতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার লাকসাম রোডের পেরুল এলাকায় কথিত এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।
পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। তারা সকলে ডাকাত দলের সদস্য।
ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহ কামাল আকন্দ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, শনিবার ভোর সাড়ে ৩টার দিকে জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার লাকসাম রোডের পেরুল এলাকায় ১০/১২ জনের সশস্ত্র ডাকাত সড়কে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এ সময় টহলরত জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে ডাকাত দলের সঙ্গে ডিবি পুলিশের গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই ডাকাত আবদুল কাদের মারা যায়।
তিনি আরো জানান, ঘটনাস্থল থেকে ৩টি এলজি, ১টি বিদেশি শর্টগান, ৩টি ছুরি এবং ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধারসহ ৮ ডাকাতকে আটক করা হয়। আটকরা হলেন- নেয়ামত উল্লাহ, সহিদুল ইসলাম, নোমান মিয়া, শৌরভ, জাহাঙ্গীর, জামাল, জুয়েল ও বাবুল।
ডিবি পুলিশের এই উপপরিদর্শক আরো জানান, নিহত ডাকাত আবদুল কাদেরের বিরুদ্ধে লাকসাম ও মনোহরগঞ্জসহ বিভিন্ন থানায় অন্তত ৯টি ডাকাতির মামলা রয়েছে।

হাসন রাজাশেষের পাতা
কুমিল্লায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আবদুল কাদের (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার বড়নীকুন্ডু গ্রামের শাহাদাৎ হোসেনের ছেলে। পুলিশে দাবি, নিহত কাদের আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। শনিবার ভোর রাতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার লাকসাম রোডের পেরুল এলাকায় কথিত এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল...