1440172281
দাউদকান্দির প্রতিবন্ধী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রতিবন্ধী রুনু আক্তারের (১৫) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে পুলিশ ওই প্রতিষ্ঠান থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে। পরে তা ময়না তদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

জানা যায়, গত ৬ মার্চ গাজীপুর আদালত থেকে রুনু আক্তারকে এ কেন্দ্রে হস্তান্তর করা হয়। তিনি অন্যান্য প্রতিবন্ধীদের সঙ্গে থেকে এখানে প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন। শুক্রবার ভোরে তিনি গলায় ওড়না পেচিয়ে বৈদ্যুতিক পাখার সঙ্গে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা দাবি করছেন। তিনি ছিলেন বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী।

প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ‘ রুনু আক্তার গলায় ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তবে কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছে তা আমার জানা নেই।’ দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, ‘ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ খবর পেয়ে দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদার।

বাহাদুর বেপারীপ্রথম পাতা
দাউদকান্দির প্রতিবন্ধী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রতিবন্ধী রুনু আক্তারের (১৫) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে পুলিশ ওই প্রতিষ্ঠান থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে। পরে তা ময়না তদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। জানা যায়, গত ৬ মার্চ গাজীপুর আদালত থেকে রুনু আক্তারকে এ কেন্দ্রে হস্তান্তর...