image_261164.ershad (5)
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, এখন আমরা কি দেখছি। প্রতিদিন মানুষ মরছে, পানির মতো রক্ত ঝড়ছে। কারা মারছে তা জনগণ জানে। ভয়ে কেউ মুখ খুলে না। কেউ কিছু বলে না। আজ বুধবার দুপুরে বরগুনা জাতীয় পার্টি নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। এরশাদ বলেন, আমি মানুষ মারি নাই, আমার হাতে রক্ত নাই, আমার সময়ে একটিও বিচারবহির্ভূত হত্যা হয়নি। আমি কোনো এলিট ফোর্স গঠন করিনি। এখন আমরা কি দেখছি। প্রতিদিন মানুষ মরছে। পানির মতো রক্ত ঝড়ছে।

নিজেকে একজন জননন্দিত সরকার প্রধান দাবি করে এরশাদ বলেন, আমরা জননন্দিত সরকার ছিলাম। দেশে এখন কি সরকার এসেছে? মায়ের গর্ভেও বাচ্চারা নিরাপদ নয়। সংখ্যালঘুদের জমি দখল করে নেয়া হচ্ছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে উদ্দ্যেশ্য করে প্রধানমন্ত্রীর এই বিশেষ দূত বলেন, তারা গণতন্ত্রের কথা বলে। কিন্তু কিসের গণতন্ত্র? যেখানে কথা বলার অধিকার নাই, জনগণ তাদের দুঃখের কথা বলতে পারে না। সরকারের শেখানো কথা ছাড়া গণমাধ্যম কথা বলতে পারে না। মানুষের এখন আস্থা তৈরি হচ্ছে, জাপা ক্ষমতায় এলেই তাদের মুক্তি মিলবে। তারা কথা বলতে পারবে, সাংবাদিকরা লিখতে পারবে। যোগ করেন এরশাদ।

এরশাদ বলেন, আমার মন উদার। ক্ষমতায় থাকাকালীন টুঙ্গিপাড়ায় গিয়েছি। বঙ্গবন্ধুর মাজারে গিয়েছি। মুজিবনগর গিয়েছি। সেখানে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করেছি। যেটা অন্য কেউ করেনি। যমুনা সেতুর ভিত্তি প্রস্তরও উদ্বোধন করেছিলাম। সময়ের স্বল্পতার কারণে কাজ শেষ করতে পারিনি। পরবর্তীতে সেতুর উদ্বোধন করা হলেও আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এই হচ্ছে আমাদের রাজনৈতিক উদারতা। জাপা মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, জাপা নেতা গোলাম কিবরিয়া টিপু ও বরগুনা জেলার আহ্বায়ক শাহাজাহান মনসুর প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

নৃপেন পোদ্দারজাতীয়
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, এখন আমরা কি দেখছি। প্রতিদিন মানুষ মরছে, পানির মতো রক্ত ঝড়ছে। কারা মারছে তা জনগণ জানে। ভয়ে কেউ মুখ খুলে না। কেউ কিছু বলে না। আজ বুধবার দুপুরে বরগুনা জাতীয় পার্টি নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। এরশাদ বলেন, আমি...