নিজস্ব প্রতিবেদক ।
পদত্যাগী প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা এখন কানাডার টরন্টোতে অবস্থান করছেন। শুক্রবার কানাডার উদ্দেশ্যে সিঙ্গাপুর ত্যাগের পূর্বে প্রধান বিচারপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।
ওইদিনই পদত্যাগপত্রটি দূতাবাসের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি বরাবর পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এরপর শনিবার প্রধান বিচারপতি কানাডায় এসে পৌঁছান। সেখানে তিনি দীর্ঘদিন বসবাস করতে পারেন বলে পারিবারিক একটি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ওই সূত্র ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানায়, বিচারপতি সিনহা কানাডায় পৌঁছানোর পর বিশ্রাম নেন। এরপর তিনি বাংলাদেশে অবস্থানরত তার ঘনিষ্ঠ আত্নীয়-স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন। কেন পদত্যাগ করেছেন সেই বিষয়টিও তাদেরকে তিনি জানিয়েছেন। কি কারণে পদত্যাগ করেছেন এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওই সূত্র জানায়, বিচারপতি সিনহা নিজেই নিজের সকল বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকেন। এমনকি কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্বে তিনি তার পরিবারের ঘনিষ্ঠজনদেরকেও কিছু বলেন না।

এদিকে কানাডাভিত্তিক বাংলা পত্রিকা নতুন দেশের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কানাডাতে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বসবাস দীর্ঘ হতে পারে বলে তার সঙ্গে যোগাযোগ আছে এমন সূত্রগুলো আভাস দিয়েছে। টরন্টো পিয়ারসন ইনটারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট থেকে তাকে ডাউন টাউনে ভাড়া করা একটি বাসায় নিয়ে যাওয়া হয় বলে জানা যায়। তার বসবাসের জন্য এই বাড়িটি ভাড়া করা হয় বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, ভিজিটর হিসেবে কানাডায় আসা যে কেউ ছয় মাস পর্যন্ত এই দেশে অবস্থান করতে পারেন। এর পর অসুস্থতা বা যুক্তিসঙ্গত কারণে সেটি বাড়ানোর আবেদন করলে কানাডা ইমিগ্রেশন সেটি বিবেচনায় নেয়। ফলে বিচারপতি সিনহার দীর্ঘ সময় কানাডায় অবস্থান করার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা নেই।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2017/11/220.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2017/11/220-300x300.jpgশিশির সমরাটএক্সক্লুসিভ
নিজস্ব প্রতিবেদক । পদত্যাগী প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা এখন কানাডার টরন্টোতে অবস্থান করছেন। শুক্রবার কানাডার উদ্দেশ্যে সিঙ্গাপুর ত্যাগের পূর্বে প্রধান বিচারপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। ওইদিনই পদত্যাগপত্রটি দূতাবাসের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি বরাবর পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এরপর শনিবার প্রধান বিচারপতি কানাডায় এসে পৌঁছান।...