নিজস্ব প্রতিবেদক ।
জাতির পক্ষ থেকে কবি বেলাল চৌধুরীর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানালো সর্বস্তরের মানুষ। শহীদ মিনারের পাদদেশে কবির কফিন ফুলে ফুলে ছেয়ে যায়। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

আজ বুধবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, প্রতিষ্ঠান, সংগঠন ও সংস্থার নেতৃবৃন্দ এবং কবি, সাহিত্যিক, লেখক, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, শিক্ষাবিদ, সংস্কৃতিসেবীসহ বিভিন্ন অঙ্গনের ব্যক্তিবর্গ পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্যদিয়ে কবি বেলাল চৌধুরীর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান। অনুষ্ঠানে কবির দুই ছেলেসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্য ও আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে এই শ্রদ্ধানুষ্ঠান চলে সকাল ১১ থেকে দুুপুর বারটা পর্যন্ত। শহীদ মিনারে কবিকে শ্রদ্ধা জানানোর পর সেখান থেকে কবির মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে। জোহর নামাজের পর এই মসজিদে কবির প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার পর কবিকে তার গ্রামের বাড়ি ফেনী জেলার শর্শদির উদ্দেশে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। শ্রদ্ধানুষ্ঠানে জানানো হয়, গ্রামের বাড়িতে কবিকে তার মা-বাবার কবরের পাশে দাফন করা হবে।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের পর কবিকে স্মরণ করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন সংস্কৃতি বিষয়কমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী, জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতি কবি মুহম্মদ সামাদ ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস।
শহীদ মিনারে প্রথমেই পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে কবির প্রতি শ্রদ্ধা জানান বাংলা একাডেমির সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। আরো শ্রদ্ধা জানান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুবিষয়ক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামানসহ শিক্ষকগণ, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জমান নূরসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা, সেক্টক কমান্ডারস ফোরামের পক্ষে সভাপতি কে এম শফিউল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক হারুন হাবীব, বাংলা একাডেমি, শিল্পকলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (মোজাফফর), জাতীয় কবিতা পরিষদ, আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন, গীতাঞ্জলি ফাইন আর্টস, কথা আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র ,ঋষিজ শিল্পী গোষ্ঠী, প্রাচ্যনাট, খেলাঘর, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ, ঢাকাস্থ ভারতীয় দূতাবাস, ভারত বিচিত্রা, প্রগতি লেখক পরিষদ, অন্য প্রকাশ, সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি, যারোয়া বুক কর্ণার, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র, আগামী প্রকাশনী, বঙ্গবন্ধু আবৃত্তি সংসদ, কবি রফিক আজাদ স্মৃতি সংসদ, বিউটি বোর্ডিং, সাবেক ভিসি অধ্যাপক এ কে আজাদ চৌধুরী, অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, কবি রবিউল হুসাইন, অভিনেতা ড. এনামুল হক, রামেন্দু মজুমদার, কবি হায়াৎ সাইফ, কবি কামাল চৌধুরী, কবি সানাউল হক খান প্রমুখ।

ষাট দশকের বিশিষ্ট কবি, ভাষা সংগ্রামী, সাংবাদিক, সম্পাদক ও অনুবাদক বেলাল চৌধুরী মঙ্গলবার ঢাকার একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। বাংলাদেশের সাহিত্য, সংস্কৃতি, অসাম্প্রদায়িক চেতনার সংগ্রামে এই কবি দীর্ঘকাল ধরে নিরলসভাবে কাজ করেন। তিনি ঢাকা ও কলকাতায় সাংবাদিকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন।

আসাদুজ্জমান নূর শহীদ মিনারে উপস্থিত শোকাহত মানুষের সমাবেশে বলেন, আমাদের সংস্কৃতি, সাহিত্য জগতের এক সৃষ্টিশীল মানুষ কবি বেলাল চৌধুরী। তার মৃত্যুতে যে শূন্যতার সৃষ্টি হলো তা পূরণীয় নয়। তবে তার কর্ম, ব্যক্তিত্ব, তার পথ অনুস্মরণ করলে আমরা তাকে চিরকাল স্মরণে রাখতে পারবো।

হাবিবুল্লাহ সিরাজী বলেন, কবি বেলাল চৌধুরী ছিলেন আমাদের সকল কাজের মুরুব্বি। শুধু ঢাকা নয়, সারাদেশ এমনকি ওপার বাংলায়ও তার কর্মযজ্ঞ সকলকে অভিভূত করেছে। স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু, অসাম্প্রদায়িক চেতনা- এই বিষয়গুলো ছিল তার জীবন ও কর্মের সাধনা। ভবিষ্যত প্রজন্ম যদি বেলাল ভাইয়ের এসব সাধনাকে অনুস্মরণ করেন- তাহলে তারা নিজেদের জীবনকে গড়তে পারবেন।
খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের।

http://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/04/421.jpghttp://crimereporter24.com/wp-content/uploads/2018/04/421-300x300.jpgবাহাদুর বেপারীজাতীয়
নিজস্ব প্রতিবেদক । জাতির পক্ষ থেকে কবি বেলাল চৌধুরীর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানালো সর্বস্তরের মানুষ। শহীদ মিনারের পাদদেশে কবির কফিন ফুলে ফুলে ছেয়ে যায়। খবর ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমের। আজ বুধবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, প্রতিষ্ঠান, সংগঠন ও সংস্থার নেতৃবৃন্দ এবং কবি, সাহিত্যিক, লেখক, সাংবাদিক,...