89892_biddut
জুমার নামাজের আজান দিয়ে আর জুমার নামাজ আদায় করতে পারলেন না মুয়াজ্জিন মাওলানা শাহ নূর আলম (২৭)। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টায় মদনী মসজিদে জুমার আজান শেষ করে বৈদ্যতিক সুইচ বন্ধ করতে গিয়ে বিদুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে খুলনা মহানগরীর স্যার ইকবাল রোডস্থ মদনী মসজিদে। মুয়াজ্জিনের এই অস্বাভাবিক মৃত্যুতে মুসল্লিদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।
মুসল্লিরা ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে জানান, শুক্রবার সাড়ে ১২টার দিকে বিদ্যুৎ না থাকায় ব্যাটারির সাহায্যে মদনী মসজিদে মুয়াজ্জিন মাওলানা শাহ নূর আলম মাইকে জুমার নামাজের আজান দেন। আজান শেষ করে বৈদ্যুতিক সুইচ বন্ধ করতে গেলে বিদুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিনি গুরুতর আহত হন। তার পাশে থাকা মুসল্লি জলিল টাওয়ারের দোকানদার মোজাম্মেল হোসেনও সামান্য আহত হন। তাকে দ্রুত প্রথমে খুলনা জেনারেল হাসপাতাল ও পরে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কতর্ব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এরপর মুসল্লিরা সকলেই শোকাহত পরিবেশে জুমার নামাজ আদায় করেন।
উল্লেখ্য, ধর্মসভা রোডের মদনী মসজিদের বহুতল ভবন নির্মাণ কাজের জন্য অস্থায়ীভাবে খুলনা সিটি করপোরেশন পরিচালিত গোলকমনি শিশুপার্কের মধ্যে চাচের বেড়া ও টিন দিয়ে মসজিদ নির্মাণ করে মুসল্লিরা নামাজ আদায় করে আসছিলেন। যে কারণে বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের লাইন যেনতেনভাবে রাখাছিল। কেসিসি’র ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইমাম হাসান চৌধুরী ময়না ক্রাইম রিপোর্টার ২৪.কমকে বলেন, মসজিদে জুমার আজান শেষ করে বৈদ্যুতিক সুইচ বন্ধ করতে গিয়ে বিদুৎস্পৃষ্ট হয়ে মুয়াজ্জিন মাওলানা শাহ নূর আলম মারা গেছেন। সে কারণে ময়নাতদন্ত ছাড়াই আসরবাদ জানাজা শেষে গ্রামের বাড়ি কয়রা উপজেলার উত্তর বেদকাশিতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে ইশা বাদ দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তার পিতার নাম মোল্লা ওয়ালিউল্লাহ। সে খুলনা আলিয়া মাদরাসার কামিল শ্রেণীর ছাত্র।

নৃপেন পোদ্দারএক্সক্লুসিভ
জুমার নামাজের আজান দিয়ে আর জুমার নামাজ আদায় করতে পারলেন না মুয়াজ্জিন মাওলানা শাহ নূর আলম (২৭)। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টায় মদনী মসজিদে জুমার আজান শেষ করে বৈদ্যতিক সুইচ বন্ধ করতে গিয়ে বিদুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে খুলনা মহানগরীর স্যার ইকবাল রোডস্থ মদনী মসজিদে।...