1441112258
মিশরে ‘ফজরের আজানের ভাষা পরিবর্তনের’ অভিযোগে এক জন মুয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানিয়েছে দেশটির ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। অভিযুক্ত মুয়াজ্জিন আজানের প্রচলিত বাক্য ‘ঘুমের চেয়ে নামাজ উত্তম’ না বলে ‘ফেসবুকে সময় কাটানোর চেয়ে নামাজ উত্তম’ বলেন।

বিষয়টি ভালভাবে নেননি ওই এলাকার মুসল্লিরা। তারা ওই মুয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে নালিশ করেন। এর পরই ওই মুয়াজ্জিনকে বরখাস্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে মিশরের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

রবিবার রাতে বিষয়টি নিয়ে টেলিভিশনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে টেলিফোনে স্থানীয় একজন মুসল্লি অভিযুক্ত মুয়াজ্জিনকে ‘বিপথগামী’ উল্লেখ করে বলেন, তার এমন খামখেয়ালি আচরণের জন্য অনেকেই মসজিদটিতে নামাজ পড়া বন্ধ করে দিয়েছেন।

এর জবাবে তিনি বলেন, টেলিফোনে কথা বলা ওই ব্যক্তি নিয়মিত মসজিদে নামাজ পড়তে যান না এবং তিনি নিষিদ্ধ ঘোষিত মুসলিম ব্রাদারহুডের সমর্থক। ওই মুয়াজ্জিনের দাবি, তিনি নিজে কখনও ফেসবুক ব্যবহার করেননি। সূত্র: বিবিসি

কংকা চৌধুরীআন্তর্জাতিক
মিশরে 'ফজরের আজানের ভাষা পরিবর্তনের' অভিযোগে এক জন মুয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানিয়েছে দেশটির ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। অভিযুক্ত মুয়াজ্জিন আজানের প্রচলিত বাক্য ‘ঘুমের চেয়ে নামাজ উত্তম’ না বলে ‘ফেসবুকে সময় কাটানোর চেয়ে নামাজ উত্তম’ বলেন। বিষয়টি ভালভাবে নেননি ওই এলাকার মুসল্লিরা। তারা ওই মুয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে...