DHARSON-3

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের পরিসংখ্যান বলছে, আগস্ট মাসে ৪৫৭ জন নারী বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছে। শুধু ধর্ষণের ঘটনাই ঘটেছে ১২৯টি, যা চলতি বছরে ধর্ষণের ঘটনার মধ্যে ছিল সর্বোচ্চ। এর মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ২৮ জন, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে নয়জনকে। এ ছাড়া ১৭ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। বিভিন্নভাবে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে ১০ জন।

আজ সোমবার মহিলা পরিষদের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ১৪টি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে এ তথ্য সংগ্রহ করেছে মহিলা পরিষদ।

তথ্য অনুযায়ী, মাসটিতে ৫৩ জন নারী ও শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে ৩১ জনকে। বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে ১৬ জন কিশোরী। উত্ত্যক্ত করা হয়েছে ৪৫ জনকে, তার মধ্যে এ ধরনের ঘটনার পর আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে দুজন।

মহিলা পরিষদ বলছে, মাসটিতে যৌতুকের জন্য নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৪৩ জন নারী। এদের মধ্যে যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে ১৯ জনকে। নির্যাতনের শিকার নয়জন গৃহপরিচারিকার মধ্যে একজনকে হত্যা করা হয়েছে। অ্যাসিডদগ্ধের শিকার হয়েছে পাঁচজন। অপহরণের ঘটনা ঘটেছে মোট ১১টি। যৌনপল্লিতে বিক্রি করা হয়েছে দুজনকে। ফতোয়ার শিকার হয়েছে তিনজন। বিভিন্ন নির্যাতনের কারণে ২৩ জন আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। ১২ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পুলিশি নির্যাতনের শিকার হয়েছে পাঁচজন।

অর্ণব ভট্টপ্রথম পাতা
বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের পরিসংখ্যান বলছে, আগস্ট মাসে ৪৫৭ জন নারী বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছে। শুধু ধর্ষণের ঘটনাই ঘটেছে ১২৯টি, যা চলতি বছরে ধর্ষণের ঘটনার মধ্যে ছিল সর্বোচ্চ। এর মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ২৮ জন, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে নয়জনকে। এ ছাড়া ১৭ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। বিভিন্নভাবে...